“হারাম” এর পরিচয় Avatar

“হারাম” এর পরিচয়

হযরত ইব্রাহীম (আঃ) জিব্রাঈল (আঃ) এর মাধ্যমে বাইতুল্লাহ্ শরীফের চারিদিকে কিছু এলাকা নির্ধারণ করে দিয়েছেন। তাঁর নির্ধারণকৃত সীমানাকে *”হারাম”* বলে । এই সীমানার ভিতরের গাছগাছালি কাটা, পশুপাখি ধরা বা মারা এবং এখানে যুদ্ধবিগ্রহ করা নিষেধ। ইহরাম অবস্থায় হোক বা ইহরাম ছাড়া। *[মানাসিক ৩৮৬-৮৭]*

বর্তমানে হারামের সীমানায় বিশেষ আলামত দেওয়া আছে। নিম্নে বাইতুল্লাহর চতুর্পার্শ্বের হারামের সীমানা উল্লেখ করা হলো:—

*১) তানঈম:-* মদীনার পথে অবস্থিত,এখানে *”মসজিদে আয়েশা”* নামে একটি মসজিদ আছে। মসজিদে হারাম থেকে এই স্থানের দূরত্ব সাড়ে ৭ কিলোমিটার।

*২) নাখলাহ:-* মক্কা থেকে তায়েফ যাওয়ার পথে অবস্থিত। মসজিদে হারাম থেকে এই স্থানের দূরত্ব ১৩ কিলোমিটার।

*৩) জিয়িররানাহ:-* এটাও মক্কা থেকে তায়েফের দিকে অবস্থিত। মসজিদে হারাম থেকে এই স্থানের দূরত্ব ২২ কিলোমিটার।

*৪) এযাতু লাবান:-* বর্তমানে আকীশিয়্যাও বলা হয় মসজিদে হারাম থেকে এই স্থানের দূরত্ব ১৬ কিলিমিটার।

*৫) হুদাইবিয়্যাহ:-* এই স্থানকে শুমাইসিয়াও বলা হয় মসজিদে হারাম থেকে এই স্থানের দূরত্ব ২২ কিলোমিটার।

*৬) জাবালে আরাফাত:-* এই স্থানকে যাতুসসালীমও বলা হয় মসজিদে হারাম থেকে এই স্থানের দূরত্বও ২২ কিলোমিটার। *[কিতাবুল মাসাইল ৩/১০১]*