ইসলামের বিস্ময়কর অগ্রগতি

ইসলামের বিস্ময়কর অগ্রগতি

ইংরেজ রচিত ইতিহাসে বার বার ইসলামের বিরুদ্ধে এই অভিযােগ আরােপ করা হয়েছে যে, ইসলাম তরবারীর জোরে প্রসার লাভ করেছে। এই অভিযােগ খন্ডনের জন্য মুসলিম ঐতিহাসিকরা হাজারাে চেষ্টা করা সত্ত্বেও একটা প্রশ্ন সকলের মনে বদ্ধমূল রয়ে গেছে যে, মুসলমানরা যখন কোন এলাকায় গমন করেছে তখন সেখানকার অধিবাসীদের সামনে তিনটি প্রস্তাব তুলে ধরেছে, হয় কুরআনকে মেনে নাও নয়ত জিযিয়া কবুল কর, এই দুটির কোনটি না মানলে তােমাদের ফয়সালা তরবারীর দ্বারা হবে। তাে এই টা জানার পরে মানুষ মনে করে যে, ইসলাম হয়ত এই তৃতীয় পদ্ধতিতেই বিস্তার লাভ করেছে। কিন্তু তারা বােঝার চেষ্টা করে না যে, এই পদ্ধতিতে এত দ্রুত কি ভাবে ইসলাম প্রসারিত। হওয়া সম্ভব! ইসলামের অগ্রগতি সম্পর্কে উল্লেখ করতে যেয়ে একজন মশহুর আলেম লিখেছেন ইসলামের অভ্যুদয়ের মাত্র ৮০ বছরের মধ্যেই একদিকে তার পতাকা হিন্দুস্তানে পৌঁছে গিয়েছিল। অন্যদিকে আটলান্টিক মহাসাগরের বেলাভূমিতে তা পতপত করে উড়ছিল। হযরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ২৭০ খৃষ্টাব্দে জন্মগ্রহণ করে ৬৩২ খৃষ্টাব্দে মৃত্যুবরণ করেছিলেন। ৬২২ ষ্টাব্দে তিনি হিজরত করেছিলেন মক্কা থেকে মদীনা অভিমুখে। সেখান থকেই ইসলামের প্রকৃত বিস্তার শুরু হয়েছিল। কিন্তু ৭০০ খৃষ্টাব্দ আসতে আসতে মাত্র এই ৮০ বছরের মধ্যে ইসলাম ইরাক, ইরান এবং মধ্য এশিয়ায় পৗঁছে গিয়েছিল আর ৭১২ খৃষ্টাব্দে মুসলমানরা সিন্ধু বিজয় করেছিল ।

স্পেনেও ঠিক এই বছরই ইসলামের বিজয় পতাকা উড্ডীন হয়েছিল। ৪ ১০০ বছর পুরা হতে না হতেই ৭২২ খৃষ্টাব্দ পর্যন্ত মুসলমানদের শক্তিশালী রাজ্য পৃথিবীর বুকে দ্বিতীয়টি আর ছিল না। ইতিহাসে । সম্রাজ্যকে পরাশক্তি মনে করা হয়। কিন্তু সেটা অর্জন করতে তাদে ছয়শত বছর ব্যয় করতে হয়েছিল। পক্ষান্তরে আরবদের বিশাল সমাজ ১০০ বছরের মধ্যে এই শক্তি অর্জন করতে সমর্থ হয়েছিল।